News Narayanganj
Bongosoft Ltd.
ঢাকা মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০২২, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

গিয়াস আহবায়কে বেকায়দায় পড়বেন যেসব নেতারা


দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম | স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট প্রকাশিত: নভেম্বর ২০, ২০২২, ১০:৪৬ পিএম গিয়াস আহবায়কে বেকায়দায় পড়বেন যেসব নেতারা

অনেকটা চমক রেখেই নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। যেখানে চমক হিসেবে রয়েছেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপি প্রভাবশালী নেতা ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন। রাজনীতিতে যার অনেক কারিশমা রয়েছে। আর তার এই নেতৃত্বে সবকিছুই নতুনভাবে গড়ে উঠবে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপিতে। আর এতে করে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির অনেক নেতাই বেকায়দায় পড়ে যাবেন।

তাদের এই তালিকায় রয়েছেন জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান, সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মো. নাছির উদ্দিন, জাহিদ হাসান রোজেল, সাবেক সদস্য মোশারফ হোসেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আজহারুল ইসলাম মান্নান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনোয়ার সাদাত সায়েম ও সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান।

দলীয় সূত্র বলছে, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির একসময়ের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন কাজী মনিরুজ্জামান। নারায়ণগঞ্জ-১ আসন থেকে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনও করে ছিলেন কয়েকবার। গত কমিটিতে তিনি অনেকটা ইচ্ছা করেই বাইরে থেকে যান। তবে তিনি কমিটির বাইরে থাকলেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে তার যথেষ্ট প্রভাব ছিল। তিনি পর্দার আড়াল থেকেই খেলতেন। বিএনপির বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনেও তার প্রভাব ছিল।

কিন্তু এবার নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নতুন কমিটি হওয়াতে বিএনপিতে তার প্রভাব একেবারেই কমে যাবে। বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনে জায়গা করে নেয়া নেতারা বাদ পড়ে যাবেন। এতে করে বেশ বেকায়দায় পরে যাবেন কাজী মনিরুজ্জামান।

দলীয় আন্দোলন সংগ্রামে সক্রিয় না থেকেই নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কমিটিতে যুগ্ম আহবায়ক হিসেবে জায়গা করে নিয়ে ছিলেন নাছির উদ্দিন। সবশেষ তারাবো পৌরসভা বিএনপির কমিটিতেও আহ্বায়ক পদে তিনি জায়গা করে নিয়ে ছিলেন। কিন্তু নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির এই নতুন কমিটিতে বেশ বেকায়দায় পড়ে যাবেন নাছির উদ্দিন। বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপিতে জায়গা পাওয়াটাই তার জন্য দুষ্কর হয়ে যাবে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপিতে বেশ প্রভাবশালী নেতা হয়ে গিয়ে ছিলেন জাহিদ হাসান রোজেল। জেলা বিএনপির পরপর দুইটি কমিটিতেই তিনি গুরুত্বপূর্ণ পদে জায়গা করে নিয়ে ছিলেন। সবশেষ তিনি ফতুল্লা বিএনপির আহবায়ক পদে জায়গা করে নিয়ে ছিলেন। এর আগে তিনি জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ছিলেন। এভাবে ক্রমে ক্রমে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির রাজনীতিতে তিনি দিন দিন অগ্রগতির দিকেই যাচ্ছিলেন।

বিশেষ করে ফতুল্লা বিএনপিতে তার একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রণের মধ্যে চলে আসছিল। কিন্তু হঠাৎ করেই নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নতুন কমিটিতে বাদ পড়ে যান জাহিদ হাসান রোজেল। আর এতে করে বিএনপির সবকিছু থেকেই তাকে বাদ পড়ে যেতে হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বর্তমান বিএনপিতে তার জন্য জায়গা করে নেয়াটা কষ্টকর হয়ে যাবে।

একসময়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের সভাপতি ছিলেন মোশারফ হোসেন। তার আগে তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলে নেতৃত্ব দিয়েছেন। এভাবে ধারাবাহিকভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপিতেও জায়গা করে নিয়ে ছিলেন। সবশেষে তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য হিসেবে জায়গা করে নিয়ে ছিলেন। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হিসেবেও তিনি আলোচনায় ছিলেন। কিন্তু এবার নতুন ঘোষিত নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কমিটি থেকে তিনি বাদ পড়ে গেছেন। সেই সাথে বর্তমান এই  কমিটিতে নিজের জায়গা করে নেয়াটা বেশ কষ্টসাধ্য বিষয় হয়ে যাবে। যা তাকে বেকায়দায় ফেলে দিয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ বিএনপির বেশ প্রভাবশালী নেতা বনে গিয়ে ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আজহারুল ইসলাম মান্নান। সদ্য সাবেক কমিটির নেতারা তাকে সোনারগাঁয়ের সোনার ছেলে হিসেবে আখ্যা দিয়ে ছিলেন। তিনি জেলা বিএনপির সদ্য সাবেক কমিটির কোনো পদে থাকলে তার কথায় নেতারা যেন উঠতেন বসতেন। কোনো কর্মসূচিতে তার অপেক্ষায় থাকতেন বিএনপির নেতারা।

সেই সাথে তিনিও বেশ গরম গরম কথা বলতেন বিভিন্ন সভা সমাবেশে। পাশাপাশি সোনারগাঁ থানা বিএনপির আহবায়কের পদটিও তিনি তার দখলে নিয়ে ছিলেন।

কিন্তু নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির এই নতুন কমিটিতে তিনি একেবারেই সর্বহারা হয়ে পড়েছেন। তিনি চেষ্টা করে ছিলেন জেলা বিএনপির শীর্ষ পদটি বাগিয়ে আনার জন্য। কিন্তু সেখানে তিনি ব্যর্থ হয়ে যান। সেই সাথে আহ্বায়ক কমিটি থেকেও তিনি বাদ পড়ে যান। যা নারায়ণগঞ্জ বিএনপির রাজনীতিতে তাকে বেকায়দায় ফেলবে।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনোয়ার সাদাত সায়েম ও সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমানও জেলা বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হচ্ছিলেন। কাজী মনিরুজ্জামানের উত্তরসূরি হিসেবে জেলা বিএনপির রাজনীতিতে তাদের মূল্যায়ন বেড়ে ছিল। কিন্তু এবার নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির এই নতুন কমিটিতে তারা বেশ বেকায়দায় পড়ে যাবেন।

গত ১৫ নভেম্বর বিকেলে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ৯ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিতে আহ্বায়ক হিসেবে রয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন ও সদস্য সচিব হিসেবে রয়েছেন গোলাম ফারুক খোকন।

এছাড়াও প্রথম যুগ্ম আহবায়ক হিসেবে রয়েছেন অধ্যাপক মামুন মাহমুদ এবং অন্যান্য যুগ্ম আহবায়করা হলেন মনিরুল ইসলাম রবি, শহিদুল ইসলাম টিটু, মাশুকুল ইসলাম রাজীব, লুৎফর রহমান খোকা, মোশারফ হোসেন মো. জুয়েল আহমেদ।

Islams Group
Islam's Group