News Narayanganj
Bongosoft Ltd.
ঢাকা মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০২২, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

সুযোগ পেলে এবার ফতুল্লার জলাবদ্ধতা দূর করবো : গিয়াসউদ্দিন


দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম | স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট প্রকাশিত: নভেম্বর ১২, ২০২২, ১০:৫৪ পিএম সুযোগ পেলে এবার ফতুল্লার জলাবদ্ধতা দূর করবো : গিয়াসউদ্দিন

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় জলাবদ্ধতার সমস্যা দীর্ঘদিনের। শামীম ওসমান টানা ১০ বছর অত্র ফতুল্লায় এমপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করলেও সমাধান করতে পারেননি সামান্য জলাবদ্ধতার। যদিও দীর্ঘদিন ধরে বলে আসছেন, ডিএনডি প্রকল্পের কাজ শেষ হলেই রাতারাতি বদলে যাবে এই ফতুল্লার চিত্র। কিন্তু কবে নাগাদ সমাপ্ত হবে এই প্রকল্পের কাজ তা জানেন না কেউ। স্থানীয়রা কেবল জানেন, বছরের পর বছর ভোগান্তিই তাদের একমাত্র সঙ্গী।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ফতুল্লার চারটি ইউনিয়নকে সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভুক্ত করার জন্য উদ্যোগ নেয়। কিন্তু তাতে আপত্তি জানিয়ে চিঠি দেয় শামীম ওসমান। সেখানে লেখা হয়, এই ফতুল্লায় সিটি করপোরেশনের চাইতে অনেক বেশি উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু বাস্তবতা তা বলছে না। বরং মানুষ সিটি করপোরেশনে যুক্ত হবার অপেক্ষায় রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে এই অঞ্চলের সাবেক এমপির কাছে জানতে চাওয়া হয় তিনি কি ভাবছেন ফতুল্লাবাসীর সমস্যা নিয়ে।

এ ব্যাপারে নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বিএনপি নেতা ও সাবেক এমপি গিয়াস উদ্দিন বলেন, ফতুল্লা ২০০১ সালে সিদ্ধিরগঞ্জের চাইতে ফতুল্লা পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত হবার মত যোগ্যতা লাভ করে। কিন্তু সেসময় ফতুল্লায় চারটি ইউনিয়ন আর সিদ্ধিরগঞ্জে তিনটি ইউনিয়ন ছিল। তখন সিদ্ধিরগঞ্জের তিন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমার প্রস্তাবে রাজি হয়। কিন্তু ফতুল্লার চার ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরা আমার কথায় রাজি হয়নি। তখন আমি চেয়ারম্যানদের কথাকে গুরুত্ব দিয়েছি। ভেবেছি তারা হয়তো মানুষের কথা ভেবেই রাজি হচ্ছে না। পরে রাজি হবে। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, তারা কেউই নিজেদের গদি সরাতে রাজি হয়নি।

গিয়াসউদ্দিন বলেন, ‘ফতুল্লা এই মুহূর্তে পৌরসভা হওয়ার মত অবস্থায়ও নেই। এটাকে সিটি করপোরেশনে ঢুকাতে হবে। আমার একটা দুর্বলতা আছে যে আমি তখন চেয়ারম্যানদের উপর জোর খাটাইনি। আমি যদি তখন চেয়ারম্যানদের কথা পাত্তা না দিয়ে নিজের সিদ্ধান্ত তাদের উপর চাপিয়ে দিতাম, তাহলে আজকে ফতুল্লাবাসী সিটি করপোরেশনে থাকতো। আমি চেয়ারম্যানদের সম্মান করে তাদের উপর আমার সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেইনি। এর ফলেই আজকে ফতুল্লা এখনও অনুন্নত রয়ে গেছে। আমার কাছে সিদ্ধিরগঞ্জ যা, ফতুল্লাও তা। ফতুল্লাকে অবহেলা করে ফেলে রাখার কোন ইচ্ছাই আমার ছিল না।’

নাসিকে অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে গিয়াস বলেন, এখানকার সেন্টু, স্বপন এরা চায় না এখন চেয়ারম্যান থেকে কাউন্সিলর হতে। আমি কিছুদিন আগেও তাদের বলেছি যেন ফতুল্লাকে সিটিতে নেয়ার জন্য তারা অনুরোধ করে। কিন্তু তারা এই প্রস্তাবে নীরব থাকে। অর্থাৎ তারা অনাগ্রহী সিটিতে যুক্ত হতে। একটাই অজুহাত দেখায় ‘ট্যাক্স’। আমি মাঝে মাঝে বলি, এতই যদি তোমরা ভালো থাকো তাহলে শহরের মানুষ কেন ইউনিয়নে আসে না? বাস্তবতা হচ্ছে, এই চেয়ারম্যানরা তাদের গদি হারাতে চায় না। আর শামীম ওসমান যদি নাসিকের মেয়র হতো তাহলে তিনি নিজেই ফতুল্লাকে নাসিকের অন্তর্ভুক্ত করতো। সে হতে পারেনি বলেই এখনও ফতুল্লার বিষয়ে বার বার আপত্তি দিচ্ছে।’

জলাবদ্ধতা নিরসনের বিষয়ে তিনি বলেন, আমি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা চেয়ারম্যান, এমপি নির্বাচিত হয়েছি। যদি কখনও সুযোগ পাই তাহলে আমি সবার প্রথম ফতুল্লাকে জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ করবো। আর ফতুল্লাকে কোনভাবেই ইউনিয়ন সেবায় আবদ্ধ রাখবো না। এই এলাকার মানুষের প্রয়োজনেই তাদের সিটিতে যুক্ত করতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো।’

Islams Group
Islam's Group