News Narayanganj
Bongosoft Ltd.
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯

গডফাদার তকমা বিএনপির, কে সেই গডমাদার


দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম | শাহরিয়ার অর্ক : প্রকাশিত: আগস্ট ২, ২০২২, ১১:৩৩ পিএম গডফাদার তকমা বিএনপির, কে সেই গডমাদার

নারায়ণগঞ্জ তো বটেই দেশের আলোচিত এমপিদের একজন শামীম ওসমান যার নামের আগে বিএনপির লোকজন যেমন ‘গডফাদার’ তকমা দিত তেমনি নিজ দলের অনেকেই এ বিশেষণ ব্যবহার করে থাকেন। এছাড়া বিভিন্ন ব্যক্তিরাও তাকে এ উপাধি টেনে নাম সম্মোধন করেন। শামীম ওসমানের দাবী ছিল ১৯৯৮ সালে বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়ার লং মার্চ ঠেকানো, নারায়ণগঞ্জে গোলাম আজম সহ যুদ্ধাপরাধীদের প্রবেশ নিষেধ করে ‘গডফাদার’ উপাধি পেয়েছেন। তাকে এ নামে ডাকা কদাচিৎ ছোট বোন বনে যাওয়া সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীও ইতোপূর্বে বলেছেন এটা তার দেওয়া নাম না বরং বহু বছর আগে শামীম ওসমান উপাধি পেয়েছেন। কিন্তু দেশের সাম্প্রতিক ইস্যুতে যখন এ গডফাদার নামটি তলানীতে তখন আবারো সামনে এনেছে সেই বিএনপি।

বিগত বিএনপি সরকারের আমলে আদমজী ইপিজেড উদ্বোধনের সময়ে খান সাহেব ওসমান আলী জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের আউটডোরে সমাবেশে বক্তব্য রেখেছিলেন তখনকার প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। তিনি বক্তব্যে শামীম ওসমানকে গডফাদার উল্লেখ করেছিলেন। পরে গত আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে কাঁচপুরে শ্রমিক সমাবেশও খালেদা জিয়া বক্তব্যে শামীম ওসমানকে ইঙ্গিত করে গডফাদার উল্লেখ করেন। তাছাড়া জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বাস ভাড়া নিয়ে এক সভায় এমপি সারাহ বেগম কবরীর দিকে তেড়ে যান শামীম ওসমান। তখনও কবরী বক্তব্যে তাকে গডফাদার বলেন। এছাড়া আর তেমন এ খেতাব উচ্চারিত হতো না। মাঝে ২০১৩ সালে মেধাবী ছাত্র তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যাকান্ডের কিছুদিন পর থেকে অভিযোগ করা হয় এ হত্যাকান্ডে ওসমান পরিবারের সদস্যদের পাশাপাশি শামীম ওসমানও জড়িত। মেয়র আইভী সহ অনেকেই বেশ জোরালো কণ্ঠেই বলতে থাকেন এ হত্যায় ‘গডফাদার শামীম ওসমান জড়িত।’

যদিও শামীম ওসমানের দাবী, ত্বকী হত্যাকান্ড যখন সংঘটিত হয়েছিল তখন কেউ আমাদের নাম বলেনি। ত্বকীর বাবাও বলে নাই। ১৭ দিন পরে আমার দলের মেয়র বারবার বলা শুরু করলো এটা শামীম ওসমান করেছে মারলেন কেন? এরপর বললো ছাত্রলীগের প্রেসিডেন্ট করেছে সেক্রেটারী করেছে আমি নিজে বসে থেকে করেছি।

এদিকে গত ৯ জানুয়ারী সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রচারণার সময়ে বন্দর খেয়াঘাট এলাকাতে গণমাধ্যমকে আইভী বলেন, ‘আমি ওনাকে (শামীম ওসমানকে) গডফাদার উপাধি দেইনি। এটা ওনার বিগত ৩০ বছরের উপাধি। শুধু নারায়ণগঞ্জ নয়, তাকে সারা বাংলাদেশ জানে।’

তার মতে, আওয়ামী লীগ একটি বৃহত্তর দল, এখানে সকলেরই স্থান আছে। এ দলে জনপ্রিয় মানুষের যেমন স্থান আছে, তেমনি বিতর্কিত মানুষেরও স্থান আছে।

তিনি বলেন, ‘ওনার (তৈমূর আলম) চারপাশে এখনও বিএনপির লোকজন আছে। এখন আবার জাতীয় পার্টি যুক্ত হয়েছে। আবার আমাদের নারায়ণগঞ্জের কথিত গডফাদার শামীম ওসমানের লোকজনও যুক্ত হয়েছে। সম্ভবত উনি বিএনপির প্রার্থী নন, আমার মনে হয় উনি সেলিম ওসমান ও শামীম ওসমানের প্রার্থী।

নিজ দলের প্রভাবশালী মেয়রের কণ্ঠে যখন গডফাদার তকমা তখন বিএনপির নেতারাও এবার গডফাদার উপাধির সঙ্গে নতুন করে গডমাদার শব্দ যুক্ত হয়েছে। ৩১ জুলাই চাষাঢ়া শহীদ মিনারে দাঁড়িয়ে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল বলেছেন, নানা কারণে বন্দর নগরী নারায়ণগঞ্জ সমাদৃত ছিল। কিন্তু এ নারায়ণগঞ্জ আর উন্নয়নের নারায়ণগঞ্জ হিসেবে পরিচিত পায় না। এখন পরিচিতি পাচ্ছে গডফাদার ও গডমাদারের নগরী হিসেবে। এক সময়ে নারায়ণগঞ্জের ভালো মানুষেরা আর চুপচাপ বসে থাকবে না। এখানকার গডফাদার ও গডমাদারের সাম্রাজ্যের পতন ঘটাবে। নারায়ণগঞ্জের জিয়াউর রহমানের সৈনিকেরা একদিন সন্ত্রাসের তিলক মুছে ফুলের বীজ ফুটবে। নারায়ণগঞ্জ একদিন আর সন্ত্রাসের নগরী হিসেব পরিচিতি বাদ দিয়ে শান্তির শহর হিসেবে পরিচিতি পাবে। আমি নারায়ণগঞ্জের নেতাকর্মীদের অনুরোধ করবো আপনারা প্রস্তুত থাকেন। অচিরেই আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নির্দেশ দিবেন। তখন আমাদের মাঠে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। প্যাকেজ করে আমাদের নেত্রীর যেমন মুক্তি আদায় করতে হবে তেমনি আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দেশে ফিরবে সেই সঙ্গে সরকারের পতন ঘটবে। তাই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে বলবো আপনারা কাপড় চোপড় রেডি রাইখেন। শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট কিন্তু পালানোর সময়ে কাপড় পায়নি। আপনারা যাতে পান সেটা রেডি করে রাইখেন। টাকা রাখার জায়গা নাই। দেশের নির্বাচন ব্যবস্থাও ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে। রাতে ভোট হয়। সব ক্ষেত্রেই সরকার ব্যর্থ।

এদিকে সোহেল বক্তব্যে শামীম ওসমানের নাম উল্লেখ না করেলও সকলেই তাকেই বুঝে নিয়েছে। কিন্তু গডমাদার কাকে বলা হয়েছে সেটা নিয়ে রীতিমত চলছে আলোচনা।

Islams Group
Islam's Group