News Narayanganj
Bongosoft Ltd.
ঢাকা সোমবার, ৩০ জানুয়ারি, ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯

শীতের সঙ্গে কাবু বিএনপি


দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম | স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৪, ২০২৩, ১০:২৪ পিএম শীতের সঙ্গে কাবু বিএনপি

ডিসেম্বরের পর থেকে সেভাবে ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি। শীতের দাপট না থাকলেও নেতাকর্মীদের অনেকেই যেন শীতনিদ্রায় থাকতে বেশী পছন্দ করছেন। অথচ কিছুদিন পূর্বেই চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে একের পর এক কর্মসূচী পালন করে নিজেদের ব্যস্ত রাখতেন। হটাৎ করেই নিজেদের সভাস্থল চাষাঢ়া থেকে সরিয়ে হোসিয়ারি সমিতির সামনে নিয়ে গেছেন। মাস দুয়েক পূর্বেও যেখানে কেন্দ্রীয় কর্মসূচী ছাড়াই স্বপ্রণোদিত হয়ে কর্মসূচী পালিত হতো, আজ সেখানে কেন্দ্রীয় নেতাদের দিকে তাকিয়ে থাকা ছাড়া ভিন্ন কোন কার্যক্রম পালন করতে দেখা যাচ্ছে না মহানগর বিএনপিকে।

গত কয়েক মাস পূর্বে ধারাবাহিক আন্দোলন ও কর্মসূচীতে সরব ছিলো নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি। ২০২২ সালের পুরোটা সময় জুড়েই রাজপথে দাপট দেখিয়েছে দলটি। ক্ষমতাসীন দলের বিপরীতে অব্যহত এত আন্দোলন গত সাত-আট বছরে দেখেনি এই শহরের মানুষজন। কর্মসূচীগুলো শান্তিপূর্ণ হওয়ায় আতঙ্ক বিরাজ করেনি জনমনে। কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর বাইরে এসে জেলা এবং মহানগর বিএনপি ও তাদের অঙ্গসংগঠনগুলো নিজ উদ্যোগে ধারাবাহিক কর্মসূচী পালন করে যাচ্ছিলো। দেশের কোথাও কিছু হলেও সেই ইস্যুর সাথে সংহতি প্রকাশ করে নিজেদের কর্মকান্ড পরিচালনা করছিলো।

তবে সেপ্টেম্বরে দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে উঠে নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক অঙ্গন। যুবদল কর্মী শাওন মৃত্যুর পর নানান নাটকীয়তা সামনে এলেও সক্রিয়তা হারায়নি বিএনপি। মামলা থেকে জামিন নিয়ে এসে আবারও চাঙ্গা করেছেন নিজেদের। তবে ১০ ডিসেম্বর ঢাকার সমাবেশকে সামনে রেখে ধারাবাহিক বেশ কয়েকটি মামলা দায়ের হলে কিছুটা স্থিমিত হয় বিএনপি। এরপর ঘরোয়া ভাবে বেশ কিছু কর্মসূচী এবং কেন্দ্র ঘোষিত দু একটি মাঠ পর্যায়ের কর্মসূচী ছাড়া কিছুই করেননি তারা।

সূত্র বলছে, মহানগর বিএনপি দ্বিখ-িত হবার পর বেশ কয়েকদিন নিজেদের স্বার্থেই দুটি পক্ষ আলাদা আলাদা কর্মসূচী পালন করে সক্রিয় রেখেছিলেন। কিন্তু দিন দিন ঝিমিয়ে গেছেন বিদ্রোহী গ্রুপের নেতাকর্মীরা। একাধিক জনপ্রতিনিধির সমন্বয়ে গঠিত মহানগর বিদ্রোহী গ্রুপ অনেক বেশী শক্তিশালী হবে এমন আশা করলেও নিজেদের সেভাবে মেলে ধরছেন না তারা। উল্টো গাঁ ছাড়া ভাব দেখিয়ে বর্তমান কমিটি যা করে করুক এমন মনোভাব পোষণ করে বসে আছেন।

অন্যদিকে বর্তমান কমিটি অন্তঃকোন্দলের কারণে সেভাবে ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না। উপরে উপরে নিজেদের অনেক বেশী সুসংগঠিত দেখালেও ভেতরে বড় ধরনের চিড় ধরেছে। বিশেষ করে সাখাওয়াত হোসেন খান এবং আবু আল ইউসুফ খান টিপুর হাতে পুরো সংগঠন কব্জাবন্দি বলে অভিযোগ অনেকের।

তাছাড়া কর্মীদের মূল্যায়ন না করা ও সবার সাথে বাজে আচরণ করায় অতিষ্ট হয়ে উঠছেন নেতাকর্মীরা। সংগঠন বিভাজন হয়ে যাওয়ায় এবং পদ হারানোর ভয়ে অনেকেই মুখ বুঝে বিষয়গুলো সহ্য করছেন।

একই অবস্থা বিরাজ করছে মহানগর যুবদলে। আহবায়ক ও সদস্য সচিবের সাথে যুগ্ম আহবায়কদের পুরোনো বিবাদ কমেনি একটুও। নিজেদের পারস্পরিক বোঝাপড়া নিয়েই ব্যস্ত থাকছেন দিনরাত। কমিটি বাণিজ্য নিয়ে গত বছর পুরোটাই সমালোচনার মুখে ছিলো মহানগর যুবদল। অভিযোগ আর পাল্টা অভিযোগ গড়িয়েছে খোদ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে। কিন্তু সুরাহা হয়নি সেভাবে। দিনের পর দিন অভিযোগ আর নেতিবাচক খবরে কর্মীরা আস্থা হারিয়েছেন যুবদলের উপরে। বাণিজ্যের মাধ্যমে পদ প্রদান করে যুবদলকে বাণিজ্যিক কেন্দ্রে পরিণত করেছেন নেতারা। আহবায়ক ও সদস্য সচিবের বিরুদ্ধে এককালে তিন যুগ্ম আহবায়ক এক থাকলেও বর্তমানে তারা তিনজনেই যুবদলের প্রধান লাইমলাইটে আসার জন্য দৌড়ঝাঁপ করে চলছেন। ফলে মহানগর যুবদল ঐক্যবদ্ধ হয়ে সক্রিয় ভাবে মাঠে নামবে এবং রাজনীতিতে ভুমিকা রাখবে সেই সম্ভাবনা নেই দলটিতে।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের দায়িত্ব ছেড়েছেন শাহেদ বাবু। ছাত্রদলের কমিটি নতুন আসার কথা থাকলেও তা আসেনি। ফলে দীর্ঘ দিন যাবৎ কমিটি বিহীন অবস্থায় রয়েছে নারায়নগঞ্জ মহানগর ছাত্রদল। সম্ভাব্য আহবায়ক হিসেবে নাম উঠে আসা সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্রদলের আহবায়কের নেতৃত্বে বেশ কিছুদিন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। দীর্ঘ প্রতিক্ষার পরেও কমিটি ঘোষণা না হওয়ায় কিছুটা হতাশ দলটির নেতাকর্মীরা। সাম্প্রতিক সময়ে সবচেয়ে এগিয়ে থাকা এবং ঐক্যবদ্ধ ছাত্রদল দিন দিন নীরব হয়ে পড়ছে সিনিয়রদের বিভাজনের ভূমিকার কারণে।

এদিকে মহানগর বিএনপির মত স্বেচ্ছাসেবক দলেও বিরাজ করছে বিভাজন। বর্তমান কমিটির বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ আছে। পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবক দলের মূল দল বর্তমানে বিদ্রোহী বলয়ে থেকে পরিচালিত হচ্ছে। এই সুযোগে সাবেক ও পদপ্রার্থী আরেকটি গ্রুপ বলয় নতুন করে মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের ব্যানার ব্যবহার করে নিজেদের কর্মসূচী পালন করছে। এভাবেই ভাঙ্গন, বিভাজন আর অভ্যন্তরীণ কোন্দলে নিষ্ক্রিয় হতে শুরু করেছে মহানগর বিএনপি।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দিনের পর দিন একই ধরনের সমস্যা অব্যাহতভাবে চললেও কেন্দ্রীয় নেতারা সেসব সমাধানে কোন উদ্যোগ নেননি। বরং একই সমস্যা জিইয়ে রেখে চালিয়ে গেছেন দলীয় কার্যসূচী। তারা নিজেরাই বিভাজনের ক্ষেত্রে উস্কানি দিয়েছেন এমন অভিযোগও রয়েছে তৃণমূলে। মাঝে কিছুদিন ১০ ডিসেম্বরকে সামনে রেখে সবাই একহয়ে কাজ করলেও বর্তমানে আবারও নিজ নিজ স্বার্থে মনোযোগ দিয়েছেন। আর এভাবেই কোন্দল ও বিভাজনের মাঝে নিষ্ক্রিয়তার পথে হাঁটছে মহানগর বিএনপি।

Islams Group
Islam's Group