News Narayanganj
Bongosoft Ltd.
ঢাকা সোমবার, ৩০ জানুয়ারি, ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯

মাথাবিহীন জেলা যুবদল


দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম | স্টাফ করেসপন্ডেন্ট প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৩, ২০২৩, ১০:১৩ পিএম মাথাবিহীন জেলা যুবদল

গত কয়েকমাস ধরেই মাথাবিহীন অবস্থায় রয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদল। সেই সাথে সদস্য সচিব মশিউর রহমান রনিও অনেকদিন কারাগারে ছিলেন। যদিও বর্তমানে তিনি কারামুক্ত হয়েছেন। তবে মাথাবিহীন অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের কার্যক্রমে কিছুটা স্থবিরতা চলে এসেছে। বিএনপি দলীয় কর্মসূচিতে তাদের সরবতা কমে এসেছে। প্রায় সকল কর্মসূচিতেই তাঁরা নীরব ছিলেন। বিশেষ করে গত ১০ ডিসেম্বর রাজধানী ঢাকার কর্মসূচিতে তাঁরা জোরালো কোনো ভূমিকা রাখতে পারেননি।

দলীয় সূত্র বলছে, গত বছরের ১৬ মার্চ কেন্দ্রীয় যুবদলের দপ্তর সম্পাদক কামরুজ্জামান দুলাল স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে তিন সদস্য বিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। আর এই কমিটিতে আহ্বায়ক করা হয়েছিল জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক খোকনকে ও সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়েছিল ভিপি কবির হোসেনকে। একই সঙ্গে সদস্য সচিব করা হয়েছিল জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনিকে।

আর এই কমিটি ঘোষণার পর গোলাম ফারুক খোকন ও মশিউর রহমান রনির নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে সক্রিয়তা ফিরে এসেছিল। দলীয় যে কোনো কর্মসূচিতে তাদের সরব উপস্থিতি পরিলক্ষিত হতো। যুবদলের নেতাকর্মীরা রাজপথে ফিলে এসেছিলেন। তবে তাঁরা তাদের অধীনে থাকা কোনো কমিটি ঘোষণা করতে পারেননি।

এরই মধ্যে গত বছরের ১৫ নভেম্বর বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ৯ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। আর এই কমিটিতে নারায়ণগঞ্জে সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিনকে আহ্বায়ক ও গোলাম ফারুক খোকনকে সদস্য সচিব করা হয়।

আর এই কমিটি ঘোষণার মধ্য দিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের আহবায়ক পদে থাকা গোলাম ফারুক খোকন মূলদল বিএনপিতে জায়গা করে নেন। সেই সাথে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদল মাথাবিহীন হয়ে পড়ে। এখনও সেই অবস্থায় রয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের কমিটি। এখন পর্যন্ত নতুন কোনো কমিটির ঘোষণা দেয়া হয়নি। তারপরেও সদস্য সচিব মশিউর রহমান রনির নেতৃত্বে যুবদলের নেতাকর্মীদের রাজপথে দেখা মিলত।

এদিকে গত ৬ ডিসেম্বর নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে গ্রেফতার হয়ে যান নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের সদস্য সচিব মশিউর রহমান রনি। গত ১৬ জানুয়ারি তিনি কারাগার থেকে মুক্ত হয়েছেন। তবে তার অনুপস্থিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের কার্যক্রমে একেবারেই স্থবিরতা চলে এসেছিল। নীরব ভূমিকায় ছিলেন যুবদলের নেতাকর্মীরা।

অন্যদিকে আগে থেকেই নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদল মাথাবিহীন অবস্থায় রয়েছে। যা নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের কার্যক্রমে স্থবিরতা নিয়ে আসে। তবে নতুনভাবে কমিটিতে পদ পাওয়ার আশায় নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের ব্যানারে অনেকেই ব্যক্তিগতভাবে সরব রয়েছেন। সেই সাথে তাঁরা আলাদাভাবে দলীয় ব্যানারে কর্মসূচি পালন করে আসছেন। কিন্তু কমিটির ঘোষণা না আসা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলে সাংগঠনিকভাবে ভিত্তি গড়ে উঠছে না।

তার আগে ২০১৮ সালের ১৯ অক্টোবর ফতুল্লা থানা যুবদলের সভাপতি শহীদুল ইসলাম টিটুকে সভাপতি ও রূপগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সভাপতি গোলাম ফারুককে সাধারণ সম্পাদক করে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল। এর ৫ মাস পরই জেলা যুবদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দেয়া হয়।

তবে এই কমিটি ঘোষণার শুরুতেই বিতর্ক দেখা দেয় নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলে। সেই সাথে দলীয় কর্মসূচিতে তাদের কোনো ভূমিকাই দেখা যায়নি। প্রত্যেকবারই কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে কোনোরকম ফটোশেসন করেই দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে চলে যেতেন। কয়েক মিনিটের মধ্যেই তাদের কর্মসূচি সীমাবদ্ধ থেকে যাচ্ছিল।

এরই মধ্যে শহীদুল ইসলাম টিটু মূলদলে নাম লিখিয়েছেন। ফতুল্লা থানা বিএনপির সদস্য সচিব পদে এবং সর্বশেষ নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক পদে জায়গা করে নিয়েছেন। সে সময়ে তার অনুপস্থিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদল বর্তমানে মুন্ডবিহীন অবস্থায় ছিল। এ অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদল আরও বেশি দুর্বল হয়ে পড়েছে।

এরপর নতুন কমিটির মধ্য দিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলে সক্রিয়তা ফিরে আসলেও আবারও মাথাবিহীন হয়ে পড়েছে জেলা যুবদলের নেতাকর্মীরা। যার কারণে নেতাকর্মীদের চাওয়া দ্রুততম সময়ের মধ্যেই যেন নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের নতুন কমিটির ঘোষণা দেয়া হয়।

Islams Group
Islam's Group