News Narayanganj
Bongosoft Ltd.
ঢাকা সোমবার, ৩০ জানুয়ারি, ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯
  • নিমপাতা খুব ভাল জীবাণুনাশক। তাই ব্রণ সারাতে নিমপাতা অত্যন্ত কার্যকরী! নিমপাতা বেটে তার সঙ্গে চন্দনের গুঁড়া মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। এই মিশ্রণ ত্বকে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাক নিয়মিত ব্যবহারে উপকার পাবেন।

  • যাদের ব্রণর পরিমাণ অত্যধিক বেশি তারা পাতিলেবুর রস দিনে দু’তিনবার ব্রণর জায়গাগুলোতে লাগান। তবে একটানা ১০ মিনিটের বেশি রাখবেন না। ১০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। উপকার পাবেন।

  • গোলাপ জলের নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণের দাগ কমে যায়। দারুচিনি গুঁড়োর সঙ্গে গোলাপজল মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। এই মিশ্রণ ব্রণের ওপর লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণের সংক্রমণ, চুলকানি এবং ব্যথা অনেকটাই কমে যাবে।

  • এক কাপের মতো পাকা পেঁপে চটকে নিন। এর সঙ্গে মেশান ১ চামচ পাতিলেবুর রস আর প্রয়োজন মতো চালের গুঁড়ো। এই মিশ্রণটি মুখসহ গোটা শরীরে লাগান। ২০-২৫ মিনিট মালিশ করে ধুয়ে ফেলুন। পেঁপে ছাড়াও ব্যবহার করতে পারেন ঘৃতকুমারীর রস। উপকার পাবেন।

  • পুদিনা পাতার রস করে নিয়ে তা দিয়ে আইস কিউব তৈরি করুন। ফুসকুড়ি ও ব্রণ আক্রান্ত অংশে এই আইস কিউব ঘষুন ১০-১৫ মিনিট। এতে ফুসকুড়ি বা ব্রণর সংক্রমণ তো কমবেই সেই সঙ্গে ত্বকের জ্বালাপোড়া ভাবও দূর হবে।