News Narayanganj
Bongosoft Ltd.
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯

আমি জনতার প্রার্থী


দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম | স্টাফ করেসপন্ডেন্ট প্রকাশিত: জানুয়ারি ৯, ২০২২, ১১:১৩ পিএম আমি জনতার প্রার্থী

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে স্বতন্ত্র হাতি প্রতিকের প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার দাবী করেছেন তিনি জনতার প্রার্থী। সকল দলের লোকজন তাকে সমর্থন দিচ্ছে, তাঁর পক্ষে রাস্তায় প্রচারণা নামছেন। প্রভাবশালী ওসমান পরিবারের এমপিদের সঙ্গে কোন ধরনের যোগাযোগ যোগসাজশ নাই দাবী করে বলেন, ‘আমার প্রচারণায় যদি কেউ আসে এটা তো আমি আটকে রাখতে পারবো না। কারণ আমার স্লোগানই তো আমি জনগণের প্রার্থী।’

৮ জানুয়ারী এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন তৈমূর আলম খন্দকার। একই দিন সকালে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী দাবী করেন তৈমূর আলম খন্দকার হলেন গডফাদার সেলিম ওসমান ও শামীম ওসমানের প্রার্থী। তিনি জনতার না, বিএনপিরও না। তৈমূর মূলত ওসমানদের প্রার্থী।

এ প্রসঙ্গে তৈমূর বলেন, তাকে (আইভী) নাকি কেউ সাপোর্ট দেয়না, এখানে আমি কি করবো। তাদের এমপি, দলের নেতাকর্মীরা যদি তাকে সাপোর্ট না দেয় সেটা আমার করার কিছু নেই। যখন শামীম ওসমান তোলারাম কলেজের ভিপি ছাত্রনেতা তখন আমি নারায়ণগঞ্জে একজন ডাকসাইটে শ্রমিক নেতা। আমি শামীমের পায়ে হাঁটি না। আমি নিজস্ব জনশক্তিতে হাঁটি। এখন কেউ যদি মনে করে নারায়ণগঞ্জের গণমানুষের চাহিদা পূরনের জন্য যাদের আর্মি স্টাইলে তুলে দিচ্ছে সে হকারদের জন্য আমাকে প্রয়োজন। তারা যদি মনে করে তৈমূর আলম খন্দকারের কাছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নিরাপদ তাহলে তারা সে অনুযায়ী কাজ করবে।

তিনি আরো বলেন, সিটি করপোরেশনে অতিরিক্ত তিন চারগুন ট্যাক্স দিতে গিয়ে তো তারাও ভুক্তভোগী। আমি তো সকলের ভোট চাইবো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তিনবার আমার কথা বলেছেন। তিনি নারায়ণগঞ্জের ভোটার হলে সবার আগে তার কাছে গিয়ে ভোট চাইতাম। আইভী প্রার্থী না হলে আইভীর ভোটও চাইতাম।

তিনি বলেন, আমি জনগনের প্রার্থী। জনগনের চাহিদার কারণেই আমাকে প্রার্থী হতে হয়েছে। পৌরসভার ও সিটি করপোরেশন ১৮ বছর যাবৎ এক ব্যক্তির হাতে। এতে ঠিকাদারদের সিন্ডিকেট শক্ত হয়েছে কিন্তু নগরবাসীর সেবা বৃদ্ধি পায়নি। ফলে নগরবাসী এখন ঐক্যবদ্ধ। এখানে একেকজন একেক দল করে। কিন্তু ডান বাম সকলেই আমার পাশে। নারায়ণগঞ্জের নাগরিকদের জিম্মাদারি কার কাছে হেফাজতে থাকবে এটা দেখার দায়িত্বও তাদের। সে হিসেবে তারা সিদ্ধান্ত নেবে। আমি বিএনপি কী বিএনপি না এটা নারায়ণগঞ্জের বিএনপি নেতাদের জিজ্ঞেস করেন। আমাকে বিএনপি বহিষ্কার করেনি। তারা আমাকে সুযোগ করে দিয়েছে সকল দলের সমর্থন যেন আমি পাই। আমি উড়ে এসে জুড়ে বসিনি। আমার জন্ম রাজপথে। আমি চাই আমার মৃত্যুটাও যেন রাজপথেই হয়। আমি সিটি করপোরেশনকে আমার সন্তানের মত চালাবো।

সবশেষ ৩ জানুয়ারি বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা পদ থেকেও প্রত্যাহার করা হয় তৈমূর আলম খন্দকারকে। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী স্বাক্ষরিত চিঠিতে এই তথ্য জানানো হয়। চিঠিতে তৈমূর আলম খন্দকারকে জানানো হয়, ‘মাননীয় চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা কাউন্সিল সদস্য পদ থেকে আপনাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। অবিলম্বে এই নির্দেশনা কার্যকর হবে।’

দলের এমন সিদ্ধান্তে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তৈমূর বলেন, আমি মনে করি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান একটা সময়োচিত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি আমাকে জনগণের জন্য মুক্ত করে দিয়েছেন। এখন আমি রিকশাওয়ালাদের কাছে ফিরে যাব। ঠেলাগাড়িওয়ালাদের কাছে ফিরে যাব। আমি গণমানুষের কাছে ফিরে যাব।’

Islams Group
Islam's Group