News Narayanganj
Bongosoft Ltd.
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯

রক্ত ঝরিয়ে আইভীর ঘোষণা


দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম | স্টাফ করেসপন্ডেন্ট প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২, ১০:২৪ পিএম রক্ত ঝরিয়ে আইভীর ঘোষণা

নারায়ণগঞ্জ শহরের ফুটপাত হকারমুক্ত রাখতে গিয়ে চার বছর আগে রাজপথ রক্ত ঝরালেও আবারো মাঠে নামার ঘোষণা এসেছে মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর কাছ থেকে। তিনি জানিয়েছেন অচিরেই আবার মাঠে নামবেন।

আইভী বলেন, যারা ফুটপাতে চাঁদা তোলে অবৈধ যানবাহনে চাঁদা তোলে তাদের নেপথ্যে কে রয়েছে এটা নগরবাসী সবাই জানে। প্রশাসনের সহযোগিতা ছাড়া এটা সম্ভব না। পুলিশ পুলিশ সুপারের অধীনে, ম্যাজিস্ট্রেট জেলা প্রশাসকের অধীনে। তাই সিটি গর্ভানেন্স ছাড়া চাইলেই সব কিছু করা সম্ভব না। যে কারণে ইচ্ছা থাকা সত্বেও নাগরিকদের সব ধরনের সেবা দিতে পারছিনা। আমি যাব কোথায়? উচ্ছেদ কিভাবে করবো বলেন। নারায়ণগঞ্জের সবকয়টি সংগঠন চুপ হয়ে গেছেন। প্রেসক্লাব চুপ, ইউনিয়ন চুপ, নাগরিক কমিটি চুপ। আমার কাউন্সিলররাও চুপ। তারাও এখন সমঝোতা করে চলেন, কারণ উপায় নেই। ২/৪ টা মামলা খেয়ে যেতে হবে তাদের। শহরবাসীকেও আওয়াজ তুলতে হবে। আমি তো আছিই, আমাকে বলেন আমি ভয় পাইনা। আমি যাব আবার উচ্ছেদ করতে। এটা সত্য, বলতে বলতেই সমাধান হবে। শায়েস্তা খান রোডের বিষয়ে প্রশাসন ও এসপির সাথে কথা বলবো। উচ্ছেদ করে রাখতে পারবো কতদিন তা জানিনা। এখন আমাকে অন্য চিন্তা করতে হচ্ছে। ফুটপাত ও রাস্তার নকশা পরিবর্তন করা যায় কিনা।

জানা গেছে, ২০১৮ সালের ১৬ জানুয়ারী বিকেলে শহরে হকার বিরোধী সমাবেশ করবেন আইভী ঘোষণা ছিল আগেই। কিন্তু আগেরদিন চাষাঢ়ায় সমাবেশ করে শামীম ওসমান বলেছিলেন ফুটপাতে হকাররা বসবে। ১৬ জানুয়ারী ফুটপাত দিয়ে পায়ে হেঁটে প্রতিবাদ জানাবেন হকার বসানোর ইস্যুতে চাষাঢ়ায় প্রেস ক্লাবে এসে সংবাদ সম্মেলন করে আইভী পুরো বিষয়টি ব্যাখা করবেন- সে উদ্দেশ্য নিয়েই বিকেল ৪টা ১৮ মিনিটে সিটি করপোরেশনের নগর ভবন থেকে বেরিয়ে কয়েক শ লোকজন নিয়ে পায়ে হেঁটে চাষাঢ়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। পরে বঙ্গবন্ধু সড়কের পূর্ব পাশের ফুটপাত ধরে চাষাঢ়ার দিকে আসতে থাকে আইভীর বহর। বিকেল ৪টা ৪০ মিনিটে যখন আইভীর বহর যখন চাষাঢ়ায় মুক্তি জেনারেল হাসপাতালের সামনে আসে তখনই কয়েকজন হকারের সঙ্গে আইভীর সঙ্গে থাকা লোকজনদের বাকবিতন্ডা ঘটে। সেখানে ছুটে আসেন শামীম ওসমানের অনুগামী হিসেবে পরিচিত যুবলীগ নেতা নিয়াজুল। কোমরে থাকা পিস্তল বের করে উচিয়ে শাসানোর সময়ে আইভীর লোকজন বাধা দেয় ও রাস্তায় ফেলে মারধর করে। ওই সময়ে হকারদের পক্ষে থাকা শামীম ওসমানের লোকজন যোগ দেয় হকারদের অনেকে। শুরু হয় দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। যদিও শামীম ওসমানের দাবী, নিয়াজুলকে আগে তিনবার মারধর করা হয়। চতুর্থবার নিয়াজুল অস্ত্র বের করে।

তবে আইভীর দাবী, নিয়াজুলই তাকে গুলি করতে গিয়েছিল।

সংঘর্ষের শুরুতেই হকার ও শামীম ওসমান পন্থী লোকজনদের কাছ থেকে এত পরিমাণ বৃষ্টির মত ইটপাটকেল আসতে থাকে যে আইভীকে তখন রক্ষা করতে মানবঢাল তৈরি করতে বাধ্য করা হয়। বৃষ্টির মত ইটপাটকেলের সঙ্গে আসতে থাকে একের পর এক গুলি। শামীম ওসমান সমর্থিত লোকজনদের মিছিল থেকে ছোড়া হয় ওই গুলি। আর ওই সময়ে আইভীকে থাকতে হয় অস্ত্র ও গুলির সামনে। প্রায় ১০ মিনিট ওই অবস্থা চলার পর আইভী সমর্থিত আরো লোকজন গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। তবে ওই সময়টাতে আইভীকে রাস্তায় বেশ কিছুক্ষণ বসে থাকতে দেখা যায়। এসময় তাদের ছোড়া ঢিলে মেয়র আইভী আহত হন।

এর আগে জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদের নেতাকর্মীরা হকারদের পুনর্বাসনের আগে ফুটপাতে বসতে দেওয়ার দাবীতে স্মারকলিপি জমা দিতে গেলে তাদের উদ্দেশ্যে মেয়র আইভী বলেন, ‘হকার উচ্ছেদে আমি পুলিশের পক্ষে আছি। বঙ্গবন্ধু সড়কে এ ফাঁকা অবস্থা যদি ধরে রাখতে না পারি তাহলে এলাকাবাসী নিয়ে হকারদের বিরুদ্ধে নামবো। প্রয়োজনে গুলি খাবো তাও একটি হকারও বসতে দিবো না।’

এদিকে মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ২০ সেপ্টেম্বর রাতে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তিনি সেখানে লিখেছেন, আশ্চর্য হই যখন দেখি কোন রাজাকারের সন্তান স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও নৌকা নিয়ে নির্বাচিত মেয়রের সামনে দাড়িয়ে মাইকে কথা বলে। এরা এক শ্রেণির দালাল যারা প্রতিনিয়ত সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলে। এরা স্বার্থের প্রয়োজনে প্রতিনিয়ত প্রশাসনের বিরুদ্ধে কথা বলে। এরা তারাই যারা দিগন্ত টিভি খুলে দেয়ার জন্য মানববন্ধন করে। যদিও এই ধরনের দালালরা নারায়ণগঞ্জের মানুষের কল্যানে জীবনে কিছু করেছে এমন কোন নজির নাই। এরা সংঘবদ্ধ দালাল চক্র। দালালী করা এদের পেশা। এদের কথায় আমার কিছু যায় আসে না। আমি সেদিন মেয়রকে নিরাপদ রাখার জন্য লাইসেন্স করা পিস্তল হাতে নিয়েছিলাম যেদিন মেয়রকে সামনে ঠেলে দিয়ে এই দালালরা পিছন থেকে পালিয়েছিলো। ওদের টার্গেট ছিলো মেয়রকে বিপদে ফেলে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতির নতুন মেরুকরণ সৃষ্টি করতে। ওদের এই নীল নকশা বুঝতে পেরেছিলাম বলেই মেয়রের নিরাপত্তার সর্বোচ্চ ব্যবস্থা করেছিলাম শামীম ওসমানের নির্দেশে।

Islams Group
Islam's Group