News Narayanganj
Bongosoft Ltd.
ঢাকা সোমবার, ৩০ জানুয়ারি, ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯

টাকা দিয়ে শহরে ঢুকে ইজিবাইক


দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম | আমাদের সময় থেকে নেওয়া : প্রকাশিত: জানুয়ারি ২২, ২০২৩, ১০:৫৪ পিএম টাকা দিয়ে শহরে ঢুকে ইজিবাইক

নারায়ণগঞ্জ শহরে ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইকের দৌরাত্ম্যে সড়কে দেখা দিয়েছে চরম বিশৃঙ্খলা। প্রতিনিয়ত সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। বিভিন্ন পয়েন্টে অবৈধ ইজিবাইকের স্ট্যান্ড তৈরি করে স্থানীয় নেতা ও প্রশাসনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজিরও অভিযোগ রয়েছে। পুলিশের দাবি, ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইকের মতো যানবাহনের কোনো কাগজপত্র না থাকায় তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না। ইজিবাইকের ব্যাপারে সিটি করপোরেশনও রহস্যজনকভাবে নিশ্চুপ।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে শহরে ইজিবাইক প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। নগরীর বিভিন্ন সড়কে পুলিশের চেকপোস্টও বসে ইজিবাইকের বিরুদ্ধে। তবে নিষেধাজ্ঞাকে পাশ কাটিয়ে মাসোহারার ভিত্তিতে ইজিবাইক শহরে দেদার প্রবেশ করছে। কোনো কোনো ইজিবাইক কিছু ভুঁইফোঁড় অনলাইন পোর্টাল ও পত্রিকার স্টিকার লাগিয়েও চালানো হচ্ছে। গোটা শহরে এসবের নিয়ন্ত্রণ করছে ইন্দ্রজিৎ, রায়হান, রাসেল নামের তিন ব্যক্তি।

একাধিক ইজিবাইক চালকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এক হাজার থেকে দেড় হাজার টাকা করে মাসোহারা দিলে নারায়ণগঞ্জ নগরীর যে কোনো এলাকায় প্রবেশ করা যায়। যেসব ইজিবাইকের মালিকরা মাসোহারা দেন, তাদেরকে অনলাইন পোর্টাল বা পত্রিকার নামে বিশেষ প্রেস লেখা স্টিকার ও টোকেন দেওয়া হয়। স্টিকার লাগানো ইজিবাইক পুলিশ আটকায় না। কিন্তু নিয়মিত মাসোহারার স্টিকার না থাকলে সেই ইজিবাইকগুলোকে আটকে জরিমানা আদায় করে নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়ক, দুই নম্বর রেলগেট, চাষাঢ়া চত্বরজুড়ে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হচ্ছে ইজিবাইকের কারণে। গ্রিন সুপার মার্কেট, সোনার বাংলা মার্কেটের সামনের বঙ্গবন্ধু সড়কে গড়ে উঠেছে অবৈধ ইজিবাইক স্ট্যান্ড। সড়কের মাঝ থেকেই উঠানো হচ্ছে যাত্রী। দুই নম্বর রেলগেট চত্বরে একাধিক ট্রাফিক পুলিশ উপস্থিত থাকা সত্ত্বেও দেদার ইজিবাইক প্রবেশ করছে।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক বিভাগের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোহান সরকার বলেন, বিভিন্ন মিডিয়ার নামসংবলিত স্টিকার লাগানো বা স্টিকার ছাড়া কোনো ইজিবাইকই শহরে প্রবেশের অনুমতি নেই। যদিও সেগুলো প্রবেশ করে। তবে আমরা সেগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করি। আসলে স্টিকার দিয়ে চাঁদাবাজির বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ কখনো আমাদের কাছে করেনি। যদি কেউ কারও অভিযোগ করে, তবে আমরা ব্যবস্থা নেব।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী শহিদুল ইসলাম বলেন, ইজিবাইক চলাচলের বিরুদ্ধে আমরা নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছি। অভিযানে আমরা ইজিবাইক আটক করছি। চাঁদাবাজির বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, চাঁদাবাজি একটি নিয়মিত অপরাধ। এ বিষয় নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কাজ করবে।

একই বিষয়ে জানতে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি সাড়া দেননি।

র‌্যাব ১১-এর কমান্ডিং অফিসার লেফটেন্যান্ট কর্নেল তানভীর মাহমুদ পাশা বলেন, ইজিবাইকে চাঁদাবাজির বিষয়ে আমাদের জানা নেই। কেউ অভিযোগ দিলে আমরা কাজ করতে পারি।

Islams Group
Islam's Group